খুলনায় বস্তা প্রতি চালের দাম বেড়েছে ২০০ টাকা | দেশজুড়ে | Aporup Bangla | বাংলার প্রতিধ্বনি
ঢাকা | বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৬ আশ্বিন ১৪২৮
দেশজুড়ে

খুলনায় বস্তা প্রতি চালের দাম বেড়েছে ২০০ টাকা

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক, খুলনা

প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর ২০২০ ১৭:২২ আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৫:০১

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক, খুলনা | প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর ২০২০ ১৭:২২


খুলনায় বস্তা প্রতি চালের দাম বেড়েছে ২০০ টাকা

মহামারী করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যেও অস্থির হয়ে উঠেছে চালের বাজার। দিন দিন বেড়েই চলেছে চালের মূল্য।

একদিকে, কেউ বলছেন, ধানের দাম বেশি হওয়ায় বৃদ্ধি পেয়েছে সবধরনের চালের দাম। অন্যদিকে অধিক লাভের আশায় সিন্ডিকেট ও কারসাজিতেই বাড়ানো হয়েছে এ পণ্যের দাম। এমনই মন্তব্য কতিপয় ব্যবসায়ীর। মাত্র সপ্তাহ খানেকের ব্যবধানে সব ধরনের চালের মূল্য কেজিপ্রতি বৃদ্ধি পেয়েছে অন্তত চার টাকা। অর্থাৎ বস্তা প্রতি (৫০ কেজি) বৃদ্ধি পেয়েছে কমপক্ষে দুইশ’ টাকা।      

শনিবার মহানগরীর খুচরা বাজারগুলোতে প্রতিকেজি চাল মোটা (স্বর্না) ৪৪ থেকে ৪৫ টাকা, আটাশ বালাম ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, মিনিকেট (ভালো মানের) ৬০ থেকে ৬২ টাকা, মিনিকেট (নিম্নমানের) ৫২ থেকে ৫৪ টাকা, বাসমতি ৬৫ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। অথচ এক সপ্তাহ আগে প্রতিকেজি চাল মোটা (স্বর্না) ৩৮ থেকে ৪০ টাকা, আটাশ বালাম ৪৬ থেকে ৪৮ টাকা, মিনিকেট (ভালো মানের) ৫৪  থেকে ৫৫ টাকা, মিনিকেট (নিম্ন মানের) ৩৮ থেকে ৪০ টাকা, বাসমতি ৫৮ থেকে ৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

নগরীর বড় বাজারে আসা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী জাহিদুল ইসলাম বলেন, খুচরা বাজারে চালের দাম বস্তাপ্রতি (৫০ কেজি) বেড়েছে অন্তত ২শ’ টাকা। ধানের ফলন ভালো না ধানের দাম বেশি। বিধায় বেড়েছে চালের দাম। তিনি বলেন, নতুন ধান বাজারে আসা শুরু করলে চালের দাম নেমে আসতে পারে।

বাজারে আসা আরেক ব্যবসায়ী মোঃ সেলিম মোড়ল বলেন, মিলার (মিল মালিক) ও বড় ব্যবসায়ীদের কারণে চালের দাম বাড়তি।

ময়লাপোতাস্থ কেসিসি সন্ধ্যা বাজারে আসা ক্রেতা হাফিজুর রহমান বলেন, সব ধরনের চালের দাম কেজিপ্রতি কমপক্ষে চার থেকে পাঁচ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও চালের পাশাপাশি, ভোজ্য তেলের দাম বেড়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম যাতে ভোক্তাদের ক্রয়-ক্ষমতার মধ্যে নামিয়ে আনা হয় এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি।

নগরীর বড় বাজার এলাকার রাজিব ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী বিল্লাল শিকদার বলেন, ধানের দাম বেশি, তাই চালের দামও বেশি। তিনি বলেন, নতুন ধানের চাল বাজারে আসা শুরু করলে চালের দাম হয়তো কমতির দিকে যেতে পারে।

বড় বাজারের আরেক ব্যবসায়ি সাগর ট্রেডার্সের মালিক আব্দুর রব বলেন,  অধিক লাভের আশায় বাজারে চাহিদা থাকা সত্ত্বেও চাল বিক্রি করছেন না মিল মালিকরা। অপরদিকে, ধানের দামও বাড়তি। এসব কারণেই চালের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে নতুন ধান বাজারে ওঠা শুরু করলে চালের বাজার স্বাভাবিক অবস্থায় আসতে পারে।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top