রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ , ১৫ মাঘ ১৪২৯

modhura
Aporup Bangla

ভ্যাট আদায়ে আতঙ্ক সৃষ্টি ব্যবসায় পরিবেশের সহায়ক নয়: এফবিসিসিআই

অর্থনীতি

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৬:৩৪, ১১ ডিসেম্বর ২০২২

সর্বশেষ

ভ্যাট আদায়ে আতঙ্ক সৃষ্টি ব্যবসায় পরিবেশের সহায়ক নয়: এফবিসিসিআই

ছবি-সংগৃহীত

মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘অনেক সম্ভবনাময় খাত আছে যেগুলো এখনও ভ্যাটের আওতার বাইরে। নতুন নতুন ক্ষেত্র শনাক্ত করে আদায় বাড়াতে হবে। এ বিষয়ে এফবিসিসিআই‘র পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা দেয়া হবে।

মূল্য সংযোজন কর-ভ্যাট আদায়ে হয়রানির অভিযোগ করেছেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই’র সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। তিনি বলেছেন, যারা নিয়মিত ভ্যাট দিচ্ছে তাদের হয়রানি না করে ভ্যাটের নতুন নতুন ক্ষেত্র শনাক্ত করে তাদেরকে করের আওতায় আনা জরুরি।

ভ্যাট দিবস উপলক্ষে শনিবার রাজধানীর রূপসী বাংলা হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এমন অভিযোগ করেন জসিম উদ্দিন। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-এনবিআরকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘যারা নিয়মিত ভ্যাট দিচ্ছেন তাদের যেন হয়রানি করা না হয়। বরং যারা ইচ্ছাকৃতভাবে ফাঁকি দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

‘অনেক সম্ভবনাময় খাত আছে যেগুলো এখনও ভ্যাটের আওতার বাইরে। নতুন নতুন ক্ষেত্র শনাক্ত করে আদায় বাড়াতে হবে। এ বিষয়ে এফবিসিসিআই‘র পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা দেয়া হবে।’ অনুষ্ঠানে জাতীয় পর্যায়ে সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারীদের পুরস্কার ও সম্মাননা দেয়া হয়। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

এফবিসিসিআই সভাপতি অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন। এবার জাতীয় পর্যায়ে ৯টি প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা দেয়া হয়। এফবিসিসিআই সভাপতি জসিম উদ্দিন বলেন, ‘মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে খাতাপত্র আটক করা, হয়রানি করা, নোটিশ দিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টির যে অভিযোগ পাওয়া যায় তা স্থিতিশীল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য সহায়ক নয়। তবে যারা ইচ্ছাকৃতভাবে রাজস্ব ফাঁকি দেয় আমরা তাদের পক্ষে নই।

তিনি বলেন, “এনবিআর ‘মেইড ইন বাংলাদেশের’ যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে তা বাস্তবায়ন করতে হলে ব্যাকওয়ার্ড ইন্ডাস্ট্রিগুলোকে প্রাধান্য দিতে হবে। পাশাপাশি পুরো রাজস্ব বিভাগের পূর্ণাঙ্গ অটোমেশন জরুরি।’ তিনি মনে করেন, রাজস্ব সংগ্রহের সবচেয়ে বড় খাত উৎসে কর, যা সমন্বয় করা হয় না। এ বিষয়টি এনবিআরকে বিশেষভাবে দেখা উচিত। সপ্তম বারের মতো ১০ ডিসেম্বর ভ্যাট দিবস পালিত হচ্ছে।

বাংলাদেশে ১৯৯১ সালে ভ্যাট প্রবর্তিত হওয়ার পর এ বিষয়ে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য ২০১১ সাল থেকে ভ্যাট দিবস ও সপ্তাহ পালন করে আসছে এনবিআর।

‘উন্নয়নের ভ্যাট নীতি, ভ্যাট দিয়ে গড়ব জাতি’ স্লোগানকে সামনে রেখে এবার ঢাকাসহ সব বিভাগীয় শহর ও কমিশনারেট কার্যালয়ে জাতীয় ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ উদযাপন হচ্ছে। একইসঙ্গে ১০-১৫ ডিসেম্বর ভ্যাট সপ্তাহ উদযাপনের লক্ষ্যে নানা কর্মসূচি নিয়েছে এনবিআর।

এনসি/

সর্বশেষ

জনপ্রিয়