যেকোন পরিস্থিতি সহনশীলতার সাথে মোকাবিলা করতে হবে।   | জাতীয় | Aporup Bangla | বাংলার প্রতিধ্বনি
ঢাকা | শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮
জাতীয়
আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিজয় দিবসের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী

যেকোন পরিস্থিতি সহনশীলতার সাথে মোকাবিলা করতে হবে।  

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৬ ডিসেম্বর ২০২০ ২২:৫৭ আপডেট: ১৬ ডিসেম্বর ২০২০ ২৩:৪০

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ১৬ ডিসেম্বর ২০২০ ২২:৫৭


আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিজয় দিবসের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, যেকোন পরিস্থিতি সহনশীলতার সাথে মোকাবিলা করতে হবে।  কে কি বলল না বলল সেগুলো শোনার থেকে দেশের জন্য কতটুকু করতে পারলাম সে চিন্তা করতে হবে। তাহলে আমরা সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারব, সঠিক কাজটি করতে পারব। যদিও আমরা সেভাবেই কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি বলেন,  হ্যাঁ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে কথা উঠার চেষ্টা হয়েছে। মনে রাখতে হবে বাংলাদেশ অসম্প্রদায়িক চেতনার দেশ। কোন অপশক্তিই অসম্প্রদায়িক বাঙালির চেতনাকে মুছে দিতে পারবে না। এই দেশের মাটিতে হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সকল ধর্মের মানুষ সমান সুযোগ নিয়ে চলবে। অর্থাৎ মুসলামান সংখ্যাগরিষ্ঠ আছি বলে অন্য ধর্মাম্বলীদের অবহেলা করব তা নয়। মনে রাখতে হবে-সকলে এক হয়ে মুক্তিযুদ্ধে একসাথে রক্ত ঢেলে দিয়ে এদেশ স্বাধীন করেছিলো। ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকলে সমান অধিকার নিয়ে বাস করবে। এ দেশে ধর্ম পালনের স্বাধীনতা সকলের থাকবে। আমরা সেই চেতনায় বিশ্বাস করি। ইসলামও আমাদের সেই শিক্ষা দিয়েছে।

বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) বিকেলে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একথা বলেন। গণভবণ থেকে তিনি ভার্চ্যুয়ালি সভায় যোগ দেন

জাতির পিতার পদাঙ্ক অনুসারে করে রাষ্ট্র পরিচালনা করার কারণেই বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, বাংলাদেশকে আমরা উন্নতির পথে এগিয়ে নিতে পারছি। জাতির পিতার দেখানো পথে ও আদর্শ নিয়ে রাষ্ট্র পরিচালনা করছি। তিনি বলেছিলেন আমাদের অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বী হতে হবে। কারণ ভিক্ষুক জাতির ইজ্জত থাকে না। সেই ভিক্ষুক জাতি হিসেবে আমরা থাকতে চাইনি। আজকে আমাদের রিজার্ভ ৪২ দশমিক ০৯ মিলিয়ন ইউএস ডলার। মাথাপিছু আয় ২ হাজার ৬৪ মার্কিন ডলার। জাতির পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে, উদ্ধৃত্তও রয়েছে।  

দেশের ৯৯ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসলেই জনগণ উপলদ্ধি করে এবার সরকার সেবক হতে পারে, দেশের মঙ্গল হতে পারে। স্বাধীনতার সূর্বণজয়ন্তীর আগে ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা হবে। সব গৃহহীন মানুষকে গৃহ দেব। প্রতিটি ঘরে আলো জ্বালবো, আজকে বলতে পারি ৯৯ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছে। জাতির পিতার জন্মশত বর্ষে শতভাগ বিদ্যুৎ দেব। করোনা মহামারিতে আওয়ামী লীগ জনগণের পাশে থেকেছে। নেতাকর্মীরা করোনার ঝুঁকি নিয়ে মানুষের পাশে দাড়িয়েছে। অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। আওয়ামী লীগের কাজ মানুষের সেবা করা আমরা করে যাব।

করোনার মধ্যেও দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি অব্যাহত রাখতে সক্ষম হয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সভাপতি মন্ডলীর সদস্য শাজাহান খান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ,সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাসিম প্রমুখ। 




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top