চলছে কঠোর লকডাউন, নেমেছে সেনাবাহিনীও | জাতীয় | Aporup Bangla | বাংলার প্রতিধ্বনি
ঢাকা | শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮
জাতীয়

চলছে কঠোর লকডাউন, নেমেছে সেনাবাহিনীও

অপরূপবাংলা প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১ জুলাই ২০২১ ১০:৩২ আপডেট: ২৩ অক্টোবর ২০২১ ০০:২৫

অপরূপবাংলা প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ১ জুলাই ২০২১ ১০:৩২


ছবি : সংগৃহীত

সারাদেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে। লকডাউন বাস্তবায়নে সেনাবাহিনীসহ মাঠে নেমেছে অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও।

এই লকডাউন চলবে ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত। বুধবার (৩০ জুন) এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, লকডাউন চলাকালে সব সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে সড়ক, রেল ও নৌ-পথে চলাচলরত সব ধরনের যন্ত্রচালিত যানবাহন।

অভ্যন্তরীণ বিমান চলাচল বন্ধ থাকলেও চালু থাকবে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট। বিদেশগামী যাত্রীরা তাদের আন্তর্জাতিক ভ্রমণের টিকিট প্রদর্শন করে যাতায়াত করতে পারবেন।

লকডাউন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের ১০৬ জন কর্মকর্তাকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। এছাড়া লকডাউন কঠোরভাবে বাস্তবায়নে মাঠ পর্যায়ে পুলিশ, বিজিবির পাশাপাশি সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে।

লকডাউন সময়কালে আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিষেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসের কর্মচারী ও যানবাহন প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয়পত্র প্রদান করে যাতায়াত করতে পারবে।

প্রজ্ঞাপন অনুসারে শপিং মল ও মার্কেটসহ সব দোকানপাট বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে সব পর্যটনকেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদন কেন্দ্র। জনসমাবেশ হয় এই ধরনের রাজনৈতিক ও ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে। স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে মসজিদে নামাজের বিষয়ে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছে।

অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। নির্দেশনা অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে। খাবারের দোকান, হোটেল-রেস্তোরাঁ সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খাবার বিক্রয় (অনলাইন/টেকঅ্যাওয়ে) করতে পারবে। কিন্তু সেখানে বসে খাওয়া যাবে না।

আদালতসমূহ প্রয়োজনীয় নির্দেশনা অনুসারে চলবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা অনুসারে, ব্যাংকিং সেবা নিশ্চিত করা হবে। গ্রাহকদের জরুরি আর্থিক সেবা দিতে আগামী ৫ জুলাই থেকে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত খোলা রাখতে পারবে। এছাড়া বিধিনিষেধ চলাকালে শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটির সঙ্গে রোববারও ব্যাংক বন্ধ থাকবে।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top