হরতালে বাস চালানোর সিদ্ধান্ত মালিক সমিতির | জাতীয় | Aporup Bangla | বাংলার প্রতিধ্বনি
ঢাকা | বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৬ আশ্বিন ১৪২৮
জাতীয়

হরতালে বাস চালানোর সিদ্ধান্ত মালিক সমিতির

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২৭ মার্চ ২০২১ ২০:০০ আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৫:১২

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ২৭ মার্চ ২০২১ ২০:০০


সারিবদ্ধ বাস ফাইল ছবি

নেতাকর্মী হতাহতের প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলাম রোববার সকাল-সন্ধ্যা (২৮ মার্চ) হরতালের ডাক দিলেও এদিন ঢাকা শহর ও শহরতলী এবং আন্তঃজেলা বাস মিনিবাস চলাচল করবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ।

শনিবার (২৭ মার্চ) সংগঠনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানান তিনি। দুপুর ১২টার দিকে অনুষ্ঠিত সভায় ফুলবাড়িয়া বাস টার্মিনাল মালিক সমিতি, সায়েদাবাদ আন্তঃজেলা ও নগর বাস টার্মিনাল মালিক সমিতি এবং মহাখালী বাস টার্মিনাল সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

খন্দকার এনায়েত উল্যাহ জানান, সভায় পরিবহন ব্যবসায়ীরা একমত হয়েছেন, হরতালে গাড়ির চাকা বন্ধ রেখে তারা লোকসান গুনতে চান না।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে করা বিক্ষোভে হাটহাজারীসহ বিভিন্ন স্থানে ‍পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে সংগঠনের নেতাকর্মীদের হতাহতের ঘটনায় শনিবার (২৭ মার্চ) দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি এবং রোববার (২৮ মার্চ) হরতালের ডাক দেয় হেফাজতে ইসলাম। শুক্রবার (২৬ মার্চ) এক ভিডিও বার্তায় হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী এ ঘোষণা দেন।

হরতালে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে দাঁতভাঙা জবাব : মামুনুল হক

হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগরের সহ-সভাপতি ও খেলাফত মজলিশের শায়খুল হাদিস মামুনুল হক বলেছেন, 'আজ ও আগামীকাল আমাদের কর্মসূচিতে যদি সন্ত্রাসী পেটোয়া বাহিনী হামলা করে বা বাধা দেয়; যদি সন্ত্রাসের ভয়াল রাজত্ব কায়েম রাখার চেষ্টা করে তবে গোটা বাংলাদেশে সব শ্রেণি-পেশার মানুষ রাস্তায় নেমে আসবে, তাদের দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে। আর এর দায় সরকারকেই নিতে হবে।'

শনিবার (২৭ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টায় বায়তুল মোকাররমে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে মামুনুল হক এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। এ সময় হেফাজতে ইসলামের ডাকা রোববারের (২৮ মার্চ) সকাল-সন্ধ্যা হরতাল সফল করতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

মামুনুল হক বলেন, 'চট্টগ্রামে গতকাল আমাদের চারজন ভাই শহীদ হয়েছেন। তাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। আহতদের পথে পথে হামলা করা হয়েছে। আমাদের আহত সন্তানরা চিকিৎসা পর্যন্ত পায়নি। যে কারণে আজ বিক্ষোভ হচ্ছে। আগামীকাল রোববার টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া সারা বাংলাদেশে শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালিত হবে।'




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top