রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ , ১৫ মাঘ ১৪২৯

modhura
Aporup Bangla

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে উপ-নির্বাচন

পদত্যাগ করলেও নির্বাচনী মাঠ ছাড়েননি হারুন

রাজনীতি

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৬:৪০, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

সর্বশেষ

পদত্যাগ করলেও নির্বাচনী মাঠ ছাড়েননি হারুন

বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশিদ হারুন

সংসদ থেকে পদত্যাগ করলেও নির্বাচনী মাঠ ছাড়েননি বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশিদ হারুন। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসনের উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা সামিউল হক লিটনকে সমর্থন দিয়ে তার পক্ষে কাজ শুরু করেছেন। এনিয়ে বিএনপির একাংশের মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে তৃণমূলে।

এদিকে নির্বাচন নিয়ে বিএনপি-জামায়াতসহ দলের মধ্যে থেকে কতিপয় ব্যক্তি ষড়যন্ত্র করছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য মো. আব্দুল ওদুদ।

জানা গেছে, সংসদ সদস্য পদ থেকে বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব মো. হারুনুর রশিদ হারুন পদত্যাগ করায় আগামী ১ ফেব্রুয়ারি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তিনজন প্রার্থী। তারা হলেন-বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য মো. আব্দুল ওদুদ, গত পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা সামিউল হক লিটন (স্বতন্ত্র) ও বিএনএফের কামরুজ্জামান খান। বর্তমানে নির্বাচনী উত্তাপ বইতে শুরু করেছে, নেতাকর্মী সমর্থক নিয়ে প্রার্থীরা মানুষের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন।

এমন অবস্থায় স্বতন্ত্র প্রার্থী সামিউল হক লিটনের পক্ষে তৎপরতা শুরু করেছেন বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশিদ হারুন। তার সঙ্গে লিটনের ব্যবসায়িক সম্পর্ক থাকায় তিনি এই তৎপরতা চালাচ্ছেন বলে গুঞ্জন উঠেছে। জানা গেছে, গত বুধবার হারুনুর রশিদ হারুন তার অনুসারী বিএনপির বিভিন্ন নেতাকর্মীদের সঙ্গে বসে ভোটে লিটনের পক্ষে কাজ করার নির্দেশনা দিয়েছেন। ওই সময় লিটনও উপস্থিত ছিলেন বলে বিএনপির একটি সূত্র দাবি করেছে।

এনিয়ে বিএনপির একটি অংশ নাখোশ হয়েছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিএনপির এক নেতা জানান, বিএনপি যেখানে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না, সেখানে হারুনুর রশিদ হারুন সাবেক যুবলীগ নেতা লিটনের পক্ষ নিয়েছেন। এতে দলের তৃণমূলে ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে। এ প্রসঙ্গে স্বতন্ত্র প্রার্থী সামিউল হক লিটন বলেন, দলমত নির্বিশেষে অনেকেই তার পক্ষে কাজ করছেন এবং তিনি বিজয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। অন্যদিকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য মো. আব্দুল ওদুদ সোমবার দুপুরে সদর উপজেলার চরবাগডাঙ্গায় নির্বাচনী প্রচারণায় গিয়ে সাংবাদিকদের জানান, এই নির্বাচন নিয়ে বিএনপি-জামায়াতসহ দলের মধ্যে কেউ কেউ ষড়যন্ত্র করছে এবং নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চক্রান্তে লিপ্ত রয়েছে।

কিন্তু তার আমলে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন হওয়ায় মানুষ তাকেই ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নৌকা উপহার দেবেন বলে তিনি শতভাগ আশা করছেন। তবে অপর প্রার্থী বিএনএফের কামরুজ্জামান খানের প্রচারণা তেমন একটা দেখা না গেলেও প্রার্থী নিজে ও তার সাথে আরও দুজনকে সাথে নিয়ে এলাকায় পোস্টার লাগাতে দেখা গেছে। তিনিও নির্বাচনে জেতার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। তবে শেষ পর্যন্ত বিজয়ের মালা কার গলায় ওঠে, তা দেখতে অপেক্ষা করতে হবে ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

এনসি/

সর্বশেষ

জনপ্রিয়