তামিমের ফিফটিতে একশ রান পার করলো বাংলাদেশ | খেলাধুলা | Aporup Bangla | বাংলার প্রতিধ্বনি
ঢাকা | বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ৫ কার্তিক ১৪২৮
খেলাধুলা

তামিমের ফিফটিতে একশ রান পার করলো বাংলাদেশ

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০২১ ০৯:৩৯ আপডেট: ২০ অক্টোবর ২০২১ ১৩:০৪

অপরূপ বাংলা প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০২১ ০৯:৩৯


 ব্যাট হাতে তামিম

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে আগে ব্যাটিং করছে বাংলাদেশ। ক্রাইস্টচার্চে বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায় ম্যাচটি শুরু হয়।

ক্যারিয়ারের ৫০তম ফিফটির স্বাদ পেলেন তামিম। প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে তামিম এমন কীর্তি গড়লেন। ফিফটিতে তামিমের পরেই আছেন সাকিব আল হাসান। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের হাফ সেঞ্চুরি আছে ৪৮টি। তামিম ৮৪ বলে ফিফটির দেখা পেয়েছেন। ইনিংসে ছিল ৬টি বাউন্ডারি। ৫০টি হাফ সেঞ্চুরির পাশাপাশি তামিমের সেঞ্চুরি আছে ১৩টি। ২১২ ম্যাচে তামিমের এখন পর্যন্ত রান ৭৪৪৫। আজকের হাফ সেঞ্চুরির ইনিংসটি সেঞ্চুরিতে রূপ দিতে পারেন কিনা সেটাই দেখার।  

ওয়াইড বলে স্টাম্পড সৌম্য

আরেকটি সম্ভাবনাময় ইনিংসের বাজে সমাপ্তি। স্পিনার মিচে স্ট্যানারের বল এগিয়ে এসে গিয়ে স্টাম্পড সৌম্য। বলটি ওয়াইড। পরিকল্পনা করেই মিডল স্টাম্প থেকে বল টার্ণ করিয়ে লেগ স্টাম্পের বাইরে টানেন অফস্পিনার। ৪৬ বলে ৩২ রান করে বিদায় নেন সৌম্য। তার আউট হওয়ার সময় বাংলাদেশের রান ২ উইকেটে ৮৫। 

ক্যাচ দিয়ে বাঁচলেন তামিম!

১৫তম ওভারের পঞ্চম বলের ঘটনা। কাইল জেমিনসনের লেন্থ বল স্ট্রেইট ড্রাইভ করেছিলেন তামিম। ৬ ফুট ৮ ইঞ্চি উচ্চতার জেমিনসন ক্যাচ লুফে নেন চোখের পলকে। সঙ্গে সঙ্গে উল্লাস কিউই শিবিরে। অনফিল্ড আম্পায়ার ক্যাচ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে তৃতীয় আম্পায়ারের সাহায্য চান। তবে সফট সিগন্যাল দিয়েছিলেন আউট। রিপ্লেতে দেখা যায় জেমিনসন তামিমের ক্যাচ ঠিকমত মুঠোবন্দী করলেও ড্রাইভ দেওয়ার সময় বল মাটির স্পর্শ পেয়েছিল। ফলে তামিম বেঁচে যান।

পঞ্চাশ পেরিয়ে বাংলাদেশ 

১৫তম ওভারের প্রথম বল মিড উইকেটে পাঠিয়ে ৩ রান নিলেন তামিম ইকবাল। ৪৯ থেকে বাংলাদেশের রান ৫২। মন্থর গতিতে রান তোলা বাংলাদেশ ১৫তম ওভারে পায় দলীয় পঞ্চাশ রান।

পাওয়ার প্লে’তে নড়বড়ে বাংলাদেশ

ম্যাট হেনরির করা অষ্টম ওভারে তামিম ইকবাল ১২ রান তুলেছিলেন। নয়তো প্রথম পাওয়ার প্লে’তে বাংলাদেশের রান আরও কম হতো। ১০ ওভারে বাংলাদেশের রান ১ উইকেটে ২৬। বৃত্তের সুবিধা কাজে লাগাতে পারেনি অতিথিরা। এ সময়ে বাউন্ডারি এসেছে ৪টি। ৪টিই মেরেছেন তামিম। ডট বলে বেড়েছে চাপ। ১০ ওভারের ৪টি ছিল মেডেন।  

রিভিউ থাকায় রক্ষা!

পঞ্চম ওভারের শেষ বল। বোল্টের লেগ স্টাম্পের বাইরের বল ফ্লিক করতে গিয়ে মিস করেন তামিম। তার প্যাডে লেগে বল যায় উইকেটের পেছনে। ডানদিকে ঝাপিয়ে বল তালুবন্দি করেন কিউই অধিনায়ক টম ল্যাথাম। নিউ জিল্যান্ডের উইকেটের আবেদনে আম্পায়ার ওয়েন নাইটস সাড়া দেন। তামিম সঙ্গে সঙ্গে রিভিউ নেন। রিপ্লেতে স্পষ্ট দেখা যায় বল তামিমের প্যাডে আঘাত পেয়ে ল্যাথামের গ্লাভসে জমা হয়। রিভিউ থাকায় রক্ষা। নয়তো শুরুতেই বিপদ হতে পারত। 

জেফ ক্রোর ট্রিপল সেঞ্চুরি

নিউ জিল্যান্ডের হয়ে জেফ ক্রো শেষ খেলেছেন ১৯৯০ সালে। এরপর তিনি ম্যাচ রেফারির ভূমিকায়। বাংলাদেশ ও নিউ জিল্যান্ডের দ্বিতীয় ওয়ানডে দিয়ে ম্যাচ রেফারি হিসেবে ট্রিপল সেঞ্চুরি করলেন জেফ ক্রো। তৃতীয় আম্পায়ার হিসেবে ওয়ানডেতে তিনশ ম্যাচে দায়িত্ব পালন করার কীর্তি গড়লেন তিনি। এর আগে ইংল্যান্ডের ক্রিস ব্রড ও শ্রীলঙ্কার রঞ্জন মাদুগালে ওয়ানডেতে এমন কীর্তি গড়েন। 

শুরুতেই লিটনকে হারাল বাংলাদেশ

শুরুটা একদমই বাজে হলো বাংলাদেশের। দ্বিতীয় ওভারে বাংলাদেশ হারাল লিটন কুমার দাশের উইকেট। কোনো রান না করেই লিটন সাজঘরে। ম্যাট হেনরির শর্ট বল পুল করতে গিয়ে ইয়ংয়ের হাতে ক্যাচ দেন। ক্যারিয়ারে এটি তার ষষ্ঠ ডাক, নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম। লিটন সাজঘরে ফেরার সময় বাংলাদেশের রান ১ উইকেটে ৪। নতুন ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকার। 

এক ম্যাচ খেলেই বাইরে হাসান মাহমুদ

প্রথম ওয়ানডেতে ডানেডিনে খেলার সুযোগ হয়েছিল তরুণ হাসান মাহমুদের। দলের ব্যর্থতার দিনে ব্যর্থ ছিলেন ডানহাতি পেসারও। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে তার সুযোগ হলো না। দলে এসেছেন পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন। 

বাংলাদেশ একাদশ

তামিম ইকবাল, লিটন কুমার দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিথুন, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মাহেদী হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান, সাইফ উদ্দিন ও তাসকিন আহমেদ।  

অপরবর্তিত নিউ জিল্যান্ড একাদশ

প্রথম ওয়ানডেতে অনায়াস জয় পাওয়ায় ক্রাইস্টচার্চে কোনো পরিবর্তন আনেনি স্বাগতিকরা। প্রথম ওয়ানডের একাদশ নিয়েই তারা মাঠে নামছে। 

নিউ জিল্যান্ড একাদশ

ট্রেন্ট বোল্ট, ডেভন কনওয়ে, মার্টিন গাপটিল, ম্যাট হেনরি, কাইল জেমিসন, টম ল্যাথাম (অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), ড্যারিল মিচেল, জিমি নিশাম, হেনরি নিকলস, মিচেল স্যান্টনার ও উইল ইয়াং।

সিরিজ বাঁচানোর লড়াই বাংলাদেশের

প্রথম ওয়ানডেতে ব্যাটে-বলে ন্যূনতম লড়াইও করতে পারেনি বাংলাদেশ। ১৩১ রানে অলআউট। নিউ জিল্যান্ড ম্যাচ জিতে যায় মাত্র ২১.২ বলে। পুরোপুরি নো কম্পিটিশিন ম্যাচ। আজ সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ে বাংলাদেশ সামর্থ্যের সবকুটু উজার করে দিতে চায়। ঘুরে দাঁড়াতে চায়। এজন্য ব্যাটসম্যানদের থেকে বড় ইনিংসের প্রত্যাশায় অধিনায়ক তামিম। সঙ্গে বোলারদের থেকেও চান দ্যুতিময় পারফরম্যান্স। নিউ জিল্যান্ডে বাংলাদেশ এখনও কোনো ম্যাচ জেতেনি বাংলাদেশ। এবার পারবে তো তামিমের দল? 




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top