ভারতে ব্ল্যাক, হোয়াইট, ইয়েলোর পর গ্রিন ফাঙ্গাস | সারাবিশ্ব | Aporup Bangla | বাংলার প্রতিধ্বনি
ঢাকা | বৃহঃস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ আশ্বিন ১৪২৮
সারাবিশ্ব

ভারতে ব্ল্যাক, হোয়াইট, ইয়েলোর পর গ্রিন ফাঙ্গাস

অপরূপবাংলা ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৭ জুন ২০২১ ১০:৫৯ আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২১:০৪

অপরূপবাংলা ডেস্ক | প্রকাশিত: ১৭ জুন ২০২১ ১০:৫৯


ফাইল ফটো

ভারতে এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত একজনের দেহে ‘গ্রিন ফাঙ্গাস’ পাওয়া গেছে। কোভিডকালে ফাঙ্গাস নতুন আতঙ্ক জন্ম দিতে পারে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। দেশটিতে গ্রিন ফাঙ্গাস শনাক্তের এটাই প্রথম ঘটনা।

বুধবার (১৬ জুন) দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য দিয়েছে।

ভারতে এর আগে ব্ল্যাক, হোয়াইট ও ইয়েলো তিন ধরনের ফাঙ্গাস শনাক্ত হয়েছে। অনেকেই এগুলোতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। দেশটিতে করোনার পাশাপাশি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে মহামারি ঘোষণা করা হয়েছে।

এনডিটিভির প্রতিবেদনের বলা হয়েছে, গ্রিন ফাঙ্গাস শনাক্ত ব্যক্তি মধ্যপ্রদেশের বাসিন্দা। তার বয়স ৩৪।

ইন্দোরের শ্রী অরবিন্দ ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সের (এসএআইএমএস) বক্ষব্যাধি বিভাগের প্রধান চিকিৎসক রবি দোশি বলেন, এটা ছত্রাকজনিত সংক্রমণের নতুন একটি ঘটনা। এই ছত্রাকের বিষয়ে বিস্তারিত গবেষণা প্রয়োজন। গ্রিন ফাঙ্গাসে সংক্রমিত হলে রোগীর ফুসফুস ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

রবি দোশি জানান, ওই রোগী মাস দুয়েক আগে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছিলেন। তার নাক থেকে রক্ত ঝরা, জ্বরের মতো উপসর্গ থেকে যায়। ধারনা ছিল, তিনি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে পরীক্ষার করে দেখা যায়, তিনি গ্রিন ফাঙ্গাসে আক্রান্ত। এ ফাঙ্গাস তার ফুসফুস, নসিকা গ্রন্থি ও রক্তে ছড়িয়েছে।

দেশটির চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ভয়াবহ ও প্রাণঘাতী হলো মিউকরমাইকোসিস বা ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। এটি রোগীদের মুখ, নাক, চোখে, ফুসফুস ও মস্তিষ্কে ছড়ায়। এতে আক্রান্তরা দৃষ্টিশক্তি হারাতে পারেন। মৃত্যুও ঘটতে পারে।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top