মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ , ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০

modhura
Aporup Bangla

পশ্চিমা সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকারে পুতিন

ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর পরাজয় অসম্ভব

সাক্ষাৎকার

অপরূপ বাংলা ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৯:১১, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

সর্বশেষ

ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর পরাজয় অসম্ভব

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন

ইউক্রেনে অভিযানরত রুশ বাহিনীর পরাজয় অসম্ভব বলে মনে করেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।  স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, ইউক্রেন আসলে একটি ‘কৃত্রিম রাষ্ট্র’ এবং সেখানে রুশ বাহিনীর জয় নিয়ে পশ্চিমা বিশ্বের কোনো ‘বিভ্রান্তির মধ্যে’ থাকা উচিত নয়।

চলতি ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রুশ অভিযানের দুই বছর পূর্ণ হতে চলেছে। যুদ্ধের দুই বছর পূর্তিতে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজের জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ট্যাকার কার্লসনকে বৃহস্পতিবার একটি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন। সাক্ষাৎকারে মধ্যযুগ থেকে ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যকার ঐতিহাসিক সম্পর্কও তুলে ধরেছেন তিনি।

বস্তুত, ২০১৯ সালের পর এই প্রথম কোনো পশ্চিমা সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন পুতিন।

তিনি বলেন, ‘রুশ বাহিনীর অভিযানের শুরু থেকে পশ্চিমা বিশ্ব নিয়মিত গুজব ছড়িয়েছে যে যুদ্ধক্ষেত্রে রুশ বাহিনী কৌলগত পরাজয়ের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে। কিন্তু এখন সম্ভবত পশ্চিমও অনুভব করতে পারছে যে, এতদিন তারা বিভ্রান্তির মধ্যে ছিল। আর আমার মতামত যদি জানতে চান, সেক্ষেত্রে আমি বলব-ইউক্রেনে রুশ বাহিনীকে পরাজিত করা অসম্ভব।’

সাক্ষাৎকারে পুতিন বলেন, ‘ইউক্রেন সেই প্রাচীন কাল থেকে রুশ ভূখণ্ডের অংশ ছিলো। সতের শতক থেকে সেখানে পোল্যান্ডের সাংস্কৃতিক, ধর্মীয় ও রাজনৈতিক প্রভাব বাড়তে এবং ইউক্রেনের জনগণের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ মস্কোর অধীনে আসতে চাইলেও সে সময় মস্কো সায় দেয়নি। তার প্রধান কারণ ছিলো, তৎকালীন জারতন্ত্র পোল্যান্ডের সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চায়নি। তবে এক সময় জনগণের আকাঙক্ষার প্রতি সাড়া দিয়ে ইউক্রেনকে নিজ ভূখণ্ড হিসেবে স্বীকৃতি দেয় মস্কো। সে সময় মস্কোর সিংহাসনের ছিলেন জারিনা (সম্রাজ্ঞী) ক্যাথেরিন দ্য গ্রেট। ১৭৬২ সাল থেকে ১৭৯৬ সাল পর্যন্ত মস্কোর সিংহাসনে ছিলেন তিনি।’

‘পরে ১৯১৭ সালে কমিউনিস্ট বিপ্লব হলো। তার তিন বছর পর ১৯২০ সালে পোল্যান্ডের সঙ্গে যুদ্ধে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন পরাজিত হলো এবং ইউক্রেনের পশ্চিমাঞ্চল দখল করে নেয় পোল্যান্ড। আরো পরে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সোভিয়েত সেনারা পোল্যান্ড, রোমানিয়া ও হাঙ্গেরির দখলে থাকা ইউক্রেনের ভূখণ্ডগুলোর উদ্ধার করলো এবং সোভিয়েত ইউনিয়নের তৎকালীন নেতা স্টালিন ইউক্রেনকে ‘সোভিয়েত’ বা রাজ্যের মর্যাদা দেন।’

‘অর্থাৎ, আমি বলতে চাইছি যে রাষ্ট্র হওয়ার জন্য যে ঐতিহাসিক ভিত্তি থাকা দরকার, তা ইউক্রেনের নেই। এটি স্টালিনের একটি প্রকল্প এবং আসলে একটি কৃত্রিম রাষ্ট্র।’

জ.ই

সর্বশেষ

জনপ্রিয়